সীতাকুণ্ড ট্রাজেডি: চমেকে মারা গেছে আরও এক শ্রমিক

সীতাকুণ্ড-ট্রাজেডি-ধ্বংসস্তুপ

দেশের খবর,ডেস্ক : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার সোনাইছড়ি ইউনিয়নস্থ কেশবনপুরের বিএম কনটেইনার ডিপোতে বিস্ফোরণ ও ভয়াবহ আগুন লাগার ঘটনায় দগ্ধ আরও এক শ্রমিক মারা গেছেন।

মঙ্গলবার (৮ জুন) দিবাগত রাত পৌণে ৪টার সময় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ফলে এ ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৪ জনে দাড়াল।

নতুন করে মারা যাওয়া ওই শ্রমিকের নাম মাসুদ রানা। বয়স ৩৬। সে জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ি উপজেলার বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

বুধবার (৮ জুন) সকালে তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মো. আলাউদ্দীন তালুকদার। হাসপাতালের সকল নিয়ম-কানুন শেষ করে মরদেহটি স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, শনিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারী এলাকার বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ফায়ার সার্ভিসের ২৫টি ইউনিটের ১৮৩ কর্মী আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছেন।

এছাড়া নোয়াখালী, ফেনী, লক্ষ্মীপুর ও কুমিল্লাসহ আশপাশের বিভিন্ন জেলা থেকেও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা আগুন নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ করেছেন।

ডিপোতে আমদানি-রপ্তানির বিভিন্ন মালামালবাহী কনটেইনার ছিল। ডিপোর কনটেইনারে রাসায়নিক ছিল, বিকট শব্দে সেগুলোতেও বিস্ফোরণ ঘটে।

সরকারি হিসেব অনুযায়ী এখন পর্যন্ত সীতাকুণ্ডের বিএম ডিপোর অগ্নিকাণ্ডের ৪১ জন নিহত ছিল। মঙ্গলবার নতুন করে আরো দুটি মরদেহবাশেষ এবং সর্বশেষ বুধবার চমেকে চিকিৎসাধীন একজনের মৃত্যুতে উদ্ধার হওয়ায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৪৪ টি।

দগ্ধ ও আহত ১৬৩ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতেই শনাক্ত হওয়া নিহতদের জেলা প্রশাসনের সহায়তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

ডিখ/প্রিন্স