করোনা ইস্যুতে আজ ভার্চুয়াল বৈঠকে বসছেন মোদি-মমতা!

করোনা, ইস্যুতে, ভার্চুয়াল, বৈঠকে বসছেন, মোদি-মমতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনা ইস্যুতে ফের বৈঠকে মুখোমুখি হতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর এই প্রথম বৈঠকের মাধ্যমে মুখোমুখি বসতে চলেছেন মমতা। আজ বৃহস্পতিবার করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে আলোচনা হবে ৷

এই বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর পাশাপাশি রাজ্যের তরফে উপস্থিত থাকতে পারেন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব এবং স্বাস্থ্যসচিবও।

নবান্ন সূত্রে জানা গেছে, রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্য ন’টি জেলার জেলাশাসক ও স্বাস্থ্য অধিকর্তার সঙ্গে বৈঠক ডাকলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় এই ভার্চুয়াল বৈঠকে হবে। বৈঠকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থাকবেন।

আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, বাংলার পাশাপাশি আরও ৯ টি রাজ্যের জেলাশাসকের সঙ্গেও কথা বলার পরিকল্পনা ছিল নরেন্দ্র মোদির।

এর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বৈঠকে ডাকা হয়নি জানিয়ে রাজ্য সরকার ক্ষোভ প্রকাশ করেছিল। পরে প্রধানমন্ত্রী দফতর থেকে নবান্নকে জানিয়ে দেওয়া হয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও এই বৈঠকে ডাকা হচ্ছে।‌

ভ্যাকসিন থেকে অক্সিজেন বিভিন্ন ইস্যুতে একাধিকবার চিঠি লিখেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে কেন্দ্রের থেকে তেমন কোনও এখনও পর্যন্ত জবাব আসেনি। এই পরিস্থিতিতে বৈঠকে বসতে চলেছেন রাজ্য এবং কেন্দ্রের দুই প্রধান।

সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এই বৈঠকে রাজ্যের জন্য আরও টিকা এবং অক্সিজেনের দাবি করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি এবং তা নিয়ন্ত্রণে রাজ্য সরকার কী কী ব্যবস্থা নিয়েছে, তার সবটাই তুলে ধরা হবে এই বৈঠকে।

নবান্ন সূত্রে খবর, করোনা সংক্রান্ত যে টাস্কফোর্স ছিল যার মাথায় ছিলেন ববি হাকিম। ববি হাকিম আপাতত নারদা মামলার কারণে সিবিআই হেফাজতে। অর্থাৎ করোনা মোকাবিলায় কাজ করা সম্ভব নয় তাঁর পক্ষে।

সব দিক মাথায় রেখেই এদিন সেই দায়িত্ব দেওয়া হলো মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে। প্রসঙ্গত আজ ববি হাকিমসহ রাজ্যের অন্য তিন হেভিওয়েট নেতামন্ত্রীর শুনানিও রয়েছে।

জানা যায়, কয়েকদিন ধরে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ১৫ দিনে ১৮ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আলোচনা করেন তিনি। তবে সাম্প্রতিককালে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়নি প্রধানমন্ত্রীর।

ডিখ/সৃষ্টি